Reading Time: 1 minute

 

আন্ডারগ্র্যাজুয়েট পর্যায়ে ভর্তির প্রস্তুতি যাচাই করতে যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো যেসব মাপকাঠি ব্যবহার করে, তার মধ্যে একটি হলো স্ট্যান্ডারডাইজড টেস্ট। বেশির ভাগ বিশ্ববিদ্যালয় ACT বা SAT নামক টেস্টের স্কোর গ্রহন করে। এ দুটোর মধ্যে যেকোন একটির স্কোর জমা দিলেই হয়। বাংলাদেশে যেহেতু স্যাটই বেশি প্রচলিত এবং অনলাইনে সহজেই স্যাট প্র্যাক্টিস ম্যাটেরিয়াল পাওয়া যায়, তাই এ পর্বে আমরা স্যাট নিয়ে আলোচনা করব।

স্যাট মুলত যেকোন শিক্ষার্থীর চিন্তার ক্ষমতা, যুক্তিবিচার করে সিদ্ধান্তে পৌছানোর ক্ষমতা, এবং গাণিতিক দক্ষতা পরিমাপ করে। স্যাটের দুইটি অংশঃ রিডিং এন্ড রাইটিং, এবং ম্যাথ। এছাড়াও থাকে একটি রচনা(Essay)। রচনা লেখা বা না লেখা সম্পূর্ণ ঐচ্ছিক, তবে প্রায় সব ভালো বিশ্ববিদ্যালয়ই ভর্তির জন্য এস্যে স্কোর চায়।

রচনা ব্যতীত পরীক্মষায় মোট প্রশ্ন সংখ্যা ১৫৪ টি  এবং সময় ১৮০ মিনিট। রচনা পড়ে উত্তর দিতে সময় দেয়া হয় ৫০ মিনিট। স্যাট পরিক্ষার প্রথম অংশ রিডিং এন্ড রাইটিং অর্থাৎ ইংলিশ।  প্রথমে ৬৫ মিনিটের ক্রিটিক্যাল রিডিং সেকশন, ১০ মিনিটের ব্রেক, তারপর ৩৫ মিনিটের রাইটিং এন্ড ল্যাঙ্গুএজ । এ অংশ শেষ হওার সাথেই সাথেই শুরু হয়ে আয় ২৫ মিনিটের ম্যাথ নো ক্যালকুলেটর সেকশন। এ সেকশনে শেষ হলে ৫ মিনিটের ব্রেক দেয়া হয়। তারপর ৪৫ মিনিটের ম্যাথ ক্যালকুলেটর অকে সেকশন। যদি কেউ ঐচ্ছিক রচনা(Optional Essay) আন্সার করে, তাহলে ২ মিনিটের ব্রেকের পর এস্যে সেকশন শুরু হয়।

এভিডেন্স বেইসড রিডিং এন্ড রাইটিং 

এ অংশের মোট মার্ক ৮০০, দুইটা অংশ ঃ রিডিং এবং রাইটিং এন্ড লেঙ্গুএজ। রিডিং সেকশনে ৫টা প্যাসেজ থাকে, প্রতিটি প্যাসেজ সংক্রান্ত প্রশ্ন থাকে দশ থেকে এগারোটি, এবং মোট প্রশ্ন সংখ্যা থাকে ৬৫টি। এ প্রশ্নগুলোর উত্তর দিতে হলে প্যাসেজের বিষয়বস্তু নিয়ে কোন পূর্ববর্তি জ্ঞান থাকার প্রয়োজন নেই।

প্যাসেজগুলো নিম্নোক্ত বিষয় সম্পৃক্ত হয়

  • একটি প্যাসেজ থাকে আমেরিকান বা বিশ্ব সাহিত্য থেকে।(ছোট গল্প বা উপন্যাসের অংশ)
  • আমেরিকার ফাউন্ডিং ডকুমেন্ট বা অন্যান্য দেশের গুরুত্বপূর্ন রাজনৈতিক নথির অংশ।
  • সমাজ বিজ্ঞানের (অর্থনীতি, মনোবিজ্ঞান, বা সোশিয়লজি) একটি প্যাসেজ।
  • এক বা একাধিক বিজ্ঞানের প্যাসেজ।

 

স্যাট পরীক্ষার দ্বিতীয় অংশ রাইটিং এন্ড ল্যাঙ্গুয়েজ। আমার জন্য সুখবর ছিলো, রাইটিং সেকশনে কিছু লিখতে হয়নি। এই অংশে চারটি প্যাসেজ পড়তে হয়, প্যাসেজের ত্রুটি বের করতে হয় এবং ঠিক করতে হয়। সবগুলো প্রশ্ন এমসিকিউ প্যাটার্নের। রাইটিং এন্ড ল্যাঙ্গুয়েজ সেকশনে ভালো করতে হলে যেসব স্কিল প্রয়োজন তা সাধারনত আমাদের স্কুলেই পড়ানো হয়। ভার্ব, টেন্স, ইডিওমস এন্ড ফ্রেজেস, পাংচুয়েশন, এপ্রপ্রিয়েট প্রিপজিশন, মডিফাইয়ার ইত্যাদির জ্ঞানই পর্যাপ্ত।

 

নমুনা প্রশ্ন

নমুনা প্রশ্ন

 

ম্যাথ 

পরীক্ষায় ম্যাথ সেকশন দুই ভাগে বিভক্ত। ম্যাথ উইথ ক্যালকুলেটর এবং ম্যাথ নো ক্যালকুলেটর। ম্যাথ নো ক্যালকুলেটর সেকশনে ২০ টি প্রশ্ন থাকে যার ১৫ টি এমসিকিউ এবং ৫ টি গ্রিড ইন। গ্রিড ইন প্রশ্নে কোন অপশন দেয়া থাকেনা। উত্তর নিজে বের করে গ্রিডে লিখতে হয়। ম্যাথ উইদ ক্যালকুলেটর ৩৮ সেকশনে প্রশ্ন থাকে। যার মধ্যে ৩০ টি এমসিকিউ এবং ৮ টি গ্রিড ইন। ম্যাথ সেকশনে যেসকল স্কিল চেক করা হয় তা নিম্নোক্তঃ হার্ট অফ এলজেব্রা- এলজেব্রার একেবারেই ব্যাসিক কনসেপ্ট যেমন লিনিয়ার ইকুএশন, লিনিয়ার ইনিকুয়েলিটি সংক্রান্ত প্রশ্ন থাকে।

পাসপোর্ট টু এডভান্সড ম্যাথমেটিক্সঃ এ অংশে একটু এডভান্সড এলজেব্রা রিলেটেড প্রশ্ন থাকে যেমন কোয়াড্রেটিক ইকুএশন, এক্সপোনেন্ট , পলিনমিয়াল, ইমাজিনারি নাম্বার ইত্যাদি।

প্রবলেম সল্ভিং এন্ড ড্যাটা এনালাইসিসঃ এ অংশ মূলত পরিসংখ্যান সংক্রান্ত। এ ধারনাগুলো বাংলাদেশের মাধ্যমিক স্তরে আলোচনা করা হলেও এ ধরণের প্রশ্ন সরাসরিভাবে কখনো করা হয়না। স্ক্যাটারপ্লট, লাইন অফ বেস্ট ফিট, স্ট্যান্ডার্ড ডেভিয়েশনের মত টার্মগুলো বাংলাদেশি শিক্ষার্থিদের কাছে পরিচিত না হলেও একটু প্র্যাক্টিস করলেই সেগুলো আয়ত্তে আনা সম্ভব।

পরিশেষে এডিশনাল টপিক ইন ম্যাথঃ এ পর্যায়ে ব্যাসিক ত্রিকোনমিতি এবং জ্যামিতির স্কিল চেক করা হয়। যেমন পিথাগোরাসের সুত্রের ব্যবহার, সাইন, কস, ট্যানের ব্যাবহার, কোন বস্তুর আয়তন বের করা।

বাংলাদেশে মাধ্যমিক শেষ করা যেকোন শিক্ষার্থির জন্য স্যাটের গণিত অংশ খুবই সহজ। দুই একমাস অনুশীলন করলেই ভালো স্কোর করা সম্ভব।

আন্তর্জাতিক ছাত্রদের জন্য বছরে অন্তত ৬ বার স্যাট অফার করা হয়। পরিক্ষার প্রায় এক মাস আগে রেজিস্ট্র্যাশন করতে হয়। রেজিস্ট্র্যাশন করতে হলে  কলেজ বোর্ডে একটি একাউন্ট থাকতে হয়। পরিক্ষার প্রায় এক মাস আগেই রেজিস্ট্রেশন করে ফেলতে হয়। আন্তর্জাতিক ছাত্রদের জন্য স্যাটের ফি এবং দেশভেদে এক্সট্রা ইন্টারন্যাশনাল ফি দিতে হয়। ২০১৬-২০১৭ শিক্ষাবছরের জন্য স্যাট উইদাউট এস্যের রেজিস্ট্রেশন ফি ৪৫$ এবং স্যাট উইদ এস্যের ফি ৫৭$। বাংলাদেশের জন্য রিজিওনাল ফি এক্ট্রা ৪৯$। ২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবছরের জন্য স্যাট উইদ এস্যের ফী হবে ৬০$ এবং উইদাউট এস্যের ফি হবে ৪৬$। বাংলাদেশের জন্য রিজিওনাল ফি অপরিবর্তিত থাকবে।

প্রস্তুতি

স্যাটে ভালো করতে হলে প্র্যাক্টিসের কোন বিকল্প নেই। প্র্যাক্টিসের জন্য দামী বইখাতার পেছনে খরচ না করে খান একাডেমিতে প্র্যাক্টিস করা ভালো। এখন পর্যন্ত খান একাডেমিতে ৮টা ফ্রি প্র্যাক্টিস টেস্ট আছে। এগুলোর রেজাল্ট ও দেয়া হয় সাথে সাথে। এছাড়াও ভুল হওা প্রশ্নের এক্সপ্লেনেশন ও দেয়া হয়। আমার মনে হয়, ৮টি প্র্যাক্টিস টেস্ট নিয়ে, সেগুলোতে ভুল হওা প্রশ্ন নোট করে পড়লে প্রায় সব টপিকই আয়ত্তে আনা যাবে।

স্যাট সংক্রান্ত যেকোন প্রশ্ন থাকলে ঘুরে আসতে পারেন College Board থেকে। সকল পরীক্ষার্থীর জন্য শুভকামনা 🙂

Reference:

College board

Khan Academy

Barron’s SAT 1600

Nuzhat Tabassum Prova

Nuzhat Tabassum Prova

%d bloggers like this: